ক্যাশ অন ডেলিভারি (Cod) মানে কি

ক্যাশ অন ডেলিভারি মানে কি এর ছবি
Cash on delivery মানে ক্রেতা হিসেবে পন্য বা পরিসেবা নেওয়া এবং নগদ অর্থ প্রদান করা। যা একজন ক্রেতা এবং বিক্রেতা (ডেলিভেরি ম্যান) এর মধ্যে সরাসরি (ফেস টু ফেস) পন্য বা পরিষেবার সরবারহ কে বোঝানো হয়। সহজ বাংলায় বোঝাতে চাইলে, এটি হাতে হাতে পন্য সাথে সাথে টাকা কে মূলত cash on delivery বলে। একে ইংরেজিতে COD ও বলা হয়। আর এই COD থেকে এর অর্থ দ্বারায় Cash on delivery. আর এই সিওডি হল পন্য পৌঁছানোর পর টাকা দেওয়ার সিস্টেম। আর বর্তমানে এটি অনলাইন এর কেনাকাটার ক্ষেত্রে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। কারণ এর মাধ্যমে ক্রেতা যেমন নিজ চোখে ও সরাসরি পন্য বা পরিসেবা দেখে নিতে পারে ঠিক তেমনি যিনি বিক্রেতা সে ও সঠিক জায়গায় পন্য যে পৌঁছেছে। সেটি জানতে পারে। এর মাধ্যমে ধোঁকাবাজি ও হয়রানি দূর হয়। ঠিক তেমনি অনলাইনে কেনাকাটার জন্য মানুষের মাঝে আগ্ৰহী হয়। যে সকল অনলাইন ই-কমার্স সাইট সিওডি দেয় তা হলো: bdshop.com, startech.com.bd ইত্যাদি। তবে কখনো কখনো daraz ও evaly ও ক্যাশ অন ডেলিভারি দিয়ে থাকে।

প্রকারভেদ কয়টি 

এর প্রকারভেদ প্রধানত দুই প্রকারের হয়ে থাকে। যা ই-কমার্সে একটি বহুল প্রচলিত অর্থ প্রদানের পদ্ধতি এবং এটি অনলাইনে পন্য কেনার জন্য ভালো ও একটি জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে এই মাধ্যম। এর প্রকারভেদ শুধু অর্থ প্রদানের ক্ষেত্রে কম বা বেশি হয়ে থাকে। যেমন: ১. ফুল ক্যাশ অন ডেলিভারি, ২. হাফ বা কম ক্যাশ অন ডেলিভারি

১. ফুল ক্যাশ অন ডেলিভারি 

Full Cash on delivery হল কোন অগ্ৰিম ডেলিভেরি চার্জ ও পন্যের দাম দিতে হবে না বরং পন্য গ্ৰাহকের কাছে পৌঁছানোর পর টাকা দিতে হবে। অনলাইন ই-কমার্স সাইট গুলো এই ধরনের ডেলিভেরিতে অগ্ৰিম কোন রকম চার্জ ছাড়াই সম্পন্ন বিনা টাকায় পন্য ডেলিভেরি দিয়ে থাকে। ওডার কনফার্ম হওয়ার পর ডেলিভেরি ম্যান এসে পন্য দেয় এবং টাকা নেয়। এই ধরনের মাধ্যম বেশ কিছু অনলাইন ই-কমার্স সাইট গুলোতে রয়েছে। যেমন: startech.com.bd

২. হাফ বা কম ক্যাশ অন ডেলিভারি

অনলাইন ই-কমার্স সাইট গুলো এই ধরনের ডেলিভেরির আগে অগ্ৰিম কিছু টাকা চার্জ দিয়ে তারপর পন্যটির অডার কনফার্ম করে। তারপর যখন ডেলিভেরি ম্যান আসে তখন পন্যের মূল টাকা নিয়ে পন্যটি গ্ৰাহকের কাছে দিয়ে দেয়। 

কীভাবে কাজ করে

সিওডি পদ্ধতিটি একটি প্রসেসের মাধ্যমে গিয়ে যায় এবং গ্ৰাহকের পন্যটি সঠিকভাবে পৌঁছে দেয়। চলুন এটি কীভাবে কাজ করে জেনে নিই। 

প্রথমে অনলাইনে একজন ক্রেতা একটি ই-কমার্স সাইটে প্রবেশ করার পর ঐ সাইটে থাকা পন্য ব্রাউজ করে এবং গ্ৰাহকের যে পন্যটি ভালো লাগে, সেটি অডার দেয় এবং চেকআউটের সময় গ্ৰাহকের পছন্দের অর্থ প্রদানের পদ্ধতি হিসেবে cod সিলেক্ট করে।

দ্বিতীয় ধাপে এসে ঐ অডারটি নিশ্চিত হয়ে গেলে পন্যটি শিপিং এর জন্য প্রস্তুত করা হয়। 

তৃতীয় ধাপে এসে একজন ডেলিভেরি ম্যান যে পন্য ডেলিভেরি দেয়। সে পন্যটি নেয় এবং গ্ৰাহকের দেওয়া ঠিকানায় পন্যটি সঠিকভাবে পৌঁছে দেয়। 

চতুর্থ ধাপে যখন ডেলিভেরি ম্যান আসে এবং হোম ডেলিভারি করার কিছুক্ষণ আগে ক্রেতা তার পন্যটি দেখে নগদে টাকা পে করে দেয়। 

আর এই ভাবেই এই পদ্ধতি কাজ করে যা সকল মানুষের কাছে একটি প্রিয় ডেলিভেরি সিস্টেম। 

ক্যাশ অন ডেলিভারির ব্যবহার ও জনপ্রিয়তা 

ই-কমার্সের ক্রমবর্ধমান চাহিদা, বিভিন্ন অর্থপ্রদানের পদ্ধতি আবির্ভূত করেছে। প্রতিটিই বিভিন্ন গ্রাহকের পছন্দ এবং চাহিদা পূরণ করে। এই পদ্ধতিগুলির মধ্যে, ক্যাশ অন ডেলিভারি (সিওডি) একটি ঐতিহ্যবাহী এবং স্থায়ী বিকল্প হিসাবে দাঁড়িয়েছে। যা বিশ্বব্যাপী লেনদেন সহজতর করার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে।

এর ব্যবহার বর্তমানে ই-কমার্স এর একটি স্বচ্ছ মাধ্যম হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। যার ফলে Gokwik এর তথ্য মতে, ২০২০ সালে দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক সমস্ত অডারের ৬৪ শতাংশ তার নেটওয়ার্কে ক্যাশ অন ডেলিভারি বা COD ব্যবহার করে দেওয়া হয়েছিল এবং UPI এ এর পছন্দ গত এক বছরে প্রায় ২০ শতাংশ বেড়েছে। 

ভারতে এর ব্যবহার বহুল ব্যবহৃত একটি মাধ্যম এবং মধ্য প্রাচ্যের সিংহভাগ এর মাধ্যমে লেনদেনে অর্থ প্রদান করে। খোদ সংযুক্ত আরব আমিরাতে যেটা পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী দেশ। সেখানে ও পুরো ই-কমার্সে কেনাকাটার ক্ষেত্রে ষাট শতাংশ সিওডি পদ্ধতি ব্যবহার করে। 

এছাড়াও পূর্ব ও মধ্য ইউরোপে সবচেয়ে পছন্দের ডেলিভেরি হল Cash on delivery. এই সকল দেশে নগদ অর্থ প্রদান করতে ভয় পায় এবং তারা সকলেই COD এই জনপ্রিয় মাধ্যমটি ব্যবহার করে। 

উপকারী দিক সমুহ

COD বা cash on delivery এর বেশ কিছু উপকারিতা রয়েছে। তবে এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি উপকার ভোগ করে ক্রেতা। কারণ এই ধরনের ডেলিভেরির আগে অগ্ৰিম কোন টাকা দিতে হয় না এবং পন্যটি ডেলিভেরি হওয়ার পর গ্ৰাহক তার নগদ অর্থ প্রদান করতে পারে। এতে করে পন্য না পাওয়ার ভয় এবং টাকা মার যাওয়ার ভয় থাকে না। যার ফলে গ্ৰাহক নিশ্চিন্তে থাকে। 

সিওডি এই পদ্ধতিটি এমন একটি পদ্ধতি যা মানুষের আস্থা থাকে এবং অনলাইনে যে সকল দোকান বা ই-কমার্স সাইট গুলো থাকে। তাঁরা ভালো পন্য দিয়ে বাধ্য থাকে। যার ফলে বিক্রেতা এবং ক্রেতার মধ্যে ভালো সম্পর্ক স্থাপন করা যায়।

অনেক ই-কমার্স সাইট গুলোতে এই ধরনের পদ্ধতি চালু থাকার কারণে তাদের অনলাইন দোকান গুলোতে ক্রেতার সংখ্যা ও বৃদ্ধি পায় এবং বেচাকেনা ও ভালো হয়। 

উপসংহার 

ক্যাশ অন ডেলিভারি অনলাইন গ্ৰাহক এবং ই-কমার্সের মধ্যে সেতু হিসেবে কাজ করে চলেছে, যা বিশ্বব্যাপী গ্রাহকদের জন্য একটি পরিচিত এবং সুবিধাজনক পেমেন্টের বিকল্প প্রদান করে। যদিও এর প্রাসঙ্গিকতা বাজারের গতিশীলতা এবং প্রযুক্তিগত অগ্রগতির সাথে বিকশিত হতে পারে। যেহেতু ব্যবসাগুলি উদ্ভাবন এবং অভিযোজন চালিয়ে যাচ্ছে, COD সম্ভবত বিশ্বব্যাপী খুচরা চাহিদার একটি মূল উপাদান থাকবে, সমস্ত গ্রাহকদের জন্য অন্তর্ভুক্তি এবং আস্থা নিশ্চিত করবে। ইতিমধ্যেই এই প্রযুক্তিটি সারা পৃথিবীতে কেনাকাটার জন্য সাড়া ফেলে দিয়েছে। 

শেষ কথা: আসা করি, আজকের এই প্রতিবেদনটি আপনার কাছে খুব ভালো লেগেছে। আমাদের ওয়েবসাইটে প্রতিদিন তথ্যবহুল প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয় তাই আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করুন। কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করুন। আসসালামুয়ালাইকুম, ধন্যবাদ। 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url