আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম

আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম এর ছবি
আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম না জানা থাকলে জেনে নিন। আমেরিকা হল পশ্চিমা বিশ্বের একটি বৃহত্তর দেশ। আসুন আমারিকার রাজ্যগুলোর নাম জেনে নেই। আমেরিকা একটি বৃহত্তর দেশ এবং সারা বিশ্বের মধ্যে উন্নত সকল দেশের মধ্যে একটি। আমেরিকার মোট আয়তন ৯৮.০৩ লক্ষ বর্গ কিলোমিটার বা ৩৭.৯ লক্ষ বর্গ মাইল। উইকিপিডিয়া অনুযায়ী, দেশটির মোট জনসংখ্যা প্রায় ৩২ কোটি ৮৪ লক্ষ। এই দেশে বিভিন্ন দেশের মানুষ বসবাস করার ফলে আমেরিকা এখন বহু সংস্কৃতিবাদী একটি দেশ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গঠন হয়েছে ৫০টি রাজ্যের মাধ্যমে, আর এই রাজ্য গুলো কে আমেরিকার রাজ্য বলে। যা দিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গঠিত। 

আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম কে ইংরেজিতে States বলে থাকে। যার অর্থ প্রদেশ। আমরা আমেরিকা কে অনেকে united states হিসেবে ও চিনি। অনেকে আমেরিকা এবং united states কে আলাদা দেশ ভেবে ভুল করেন। তবে তাদের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি যে, united states ই হল আমেরিকা। United States মূলত একটি দেশের ইংরেজি এবং গোটা দেশ কে একত্র করতে এমন শব্দ ব্যবহার করা হয়। আর এই united states প্রায় অনেক states নিয়ে গঠিত। যাকে বাংলায় রাজ্য বলি। আমেরিকায় মোট রাজ্য রয়েছে ৫০টি। তাহলে চলুন এই রাজ্য গুলোর নাম জেনে নেই।

আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম

আমেরিকার ৫০টি রাজ্যের নাম বিস্তারিতসহ উল্লেখ করা হয়েছে। আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম নিচে দেওয়া হল:

১. মিশিগান (misigan)

মিশিগানের সাথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
মিশিগান হল জনসংখ্যার দিক থেকে আমেরিকার ১০ম বৃহত্তম রাজ্য। যা প্রায় ১০.১২ মিলিয়ন জনসংখ্যার একটি রাজ্য। মিশিগান এর রাজধানীর নাম ল্যান্সিং। এই রাজ্যের আয়তন ৯৭০০০ হাজার মাইল। যা আয়তন এর দিক থেকে ১১ তম। মিশিগান রাজ্যটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্ৰেট লেক অঞ্চলের একটি রাজ্য। রাজ্যটির সবচেয়ে বড় শহর হল ডেট্রয়েট। এখানে ইংরেজি মুখ্য ভাষা। এছাড়াও স্পানিশ, আরবি ও অন্যান্য ভাষার ও প্রচলন আছে। তবে তা খুবই নগণ্য।

২. নিউ ইয়র্ক (New York)

নিউ ইয়র্ক এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
নিউ ইয়র্ক মূলত একটি উত্তর-পূর্ব ও মধ্য আটলান্টিক অঞ্চলের একটি সুন্দর তম রাজ্য। যা আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম এর মধ্যে অন্যতম। নিউ ইয়র্ক   নিউ ইয়র্ক রাজ্যটির সবচেয়ে বড় শহর নিউ ইয়র্ক সিটি। এটি প্রাচীন কাল থেকেই আমেরিকার রাজ্য গুলোর মধ্যে খুবই প্রসিদ্ধ একটি রাজ্য। নিউ ইয়র্ক রাজ্যটি সাধারণত নিউ ইয়র্ক সিটির জন্য বিখ্যাত। এছাড়াও এই রাজ্যে রয়েছে জাতিসংঘের সদর দপ্তর, স্ট্যাচু অব লিবার্টি, টাইমস স্কয়ার, ইউনিস্ফিয়ার সেন্ট্রাল পার্ক, ব্রুকলিন সেতু, ভেরাজানো-ন্যারোজ সেতু, ব্রঙ্কস চিড়িয়াখানা। যা এই রাজ্যটিকে আলাদা ভাবে চিনতে সাহায্য করে। সারা বিশ্বের মানুষ আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম এর মধ্যে নিউ ইয়র্ক কে সবচেয়ে বেশি চিনে।

নিউ ইয়র্ক রাজ্যটি জেমস, ইয়র্কের ভিউক নামানুসারে নাম করণ করা হয়েছে। নিউইয়র্ক রাজ্যের জনসংখ্যা প্রায় ১৯.৬ মিলিয়ন। যা আমেরিকার চতুর্থ সব চেয়ে বড় রাজ্য হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে। নতুন ২০২৩ সালের তথ্য অনুযায়ী, ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা হিসেবে অষ্টম। রাজ্যটির মোট আয়তন ৫৪,৫৫৬ বর্গ মাইল। যা যুক্তরাষ্ট্রের ২৭ তম বৃহত্তর রাজ্য। এখানে ৬৯.৬% মানুষ ইংরেজি ভাষায় কথা বলে। এছাড়াও স্প্যানিশ, আরবি, চীনা, ফরাসি, রাশিয়ান, ইতালীয়, তাগালগ ইত্যাদি ভাষায় ও অনেক মানুষ কথা বলে। 

৩. আলাবামা (Alabama)

আলাবামার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
আলাবামা হল আমেরিকার দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে অবস্থিত একটি রাজ্য। আলাবামার রাজধানীর নাম মন্টোগোমারি। আলাবামা হল আয়তনে ৩০ তম এবং জনসংখ্যার দিক দিয়ে ২৪ তম। যা আয়তনে ৫২,৪১৯ বর্গ মাইল ও ২০২১ সালের তথ্য অনুযায়ী, এর জনসংখ্যা প্রায় ৫,০৩৯,৮৭৭ লক্ষ জন। ২০১০ সালের তথ্য অনুযায়ী, এখানে ইংরেজি ও স্প্যানিশ ভাষায় মানুষ কথা বলে। তবে ৯৫.১% মানুষ ইংরেজি কথা বলে। আলাবামার বৃহত্তর শহর হল হান্টসভিল। আলাবামা হার্ট অফ ডিক্সি এবং কনট স্টেট নামে বেশ পরিচিত। গ্ৰেটার বার্মিংহাম হল অর্থনৈতিক কেন্দ্র এবং মেট্রোপলিটন এলাকা । 

৪. আলাস্কা (Alaska)

আলাস্কার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
আলাস্কা হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর অঞ্চলের একটি রাজ্য। যা আমেরিকার মূল ভুখন্ড থেকে আলাদা। এটি আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম এর মধ্যে অন্যতম বড় রাজ্য। আলাস্কার রাজধানীর নাম জুনউ। এই রাজ্য একেবারে উত্তর পশ্চিমে অবস্থিত। এই রাজ্যের ডাকনাম দ্য লাস্ট ফ্রন্টিয়ার। এর আয়তন ৬৬৫,৩৮৪ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, আলাস্কার মোট জনসংখ্যা প্রায় ৭৩৩,৩৯১ জন। এই রাজ্যের মানুষ ৮৩.৩% ইংরেজি ভাষায় কথা বলে। আলাস্কার বৃহত্তর শহর হল লঙ্গরখানা। আলাস্কা আমেরিকা সবচেয়ে বড় রাজ্য। আলাস্কা আয়তনের দিক দিয়ে আমেরিকায় ১ম স্থানে আছে। 

৫. অ্যারিজোনা (Arizona)

অ্যারিজোনার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
অ্যারিজোনা হল আমেরিকার দক্ষিণ পশ্চিম অঞ্চলের একটি রাজ্য। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, অ্যারিজোনা রাজ্যের জনসংখ্যা প্রায় ৭,১৫১,৫০২ জন। যা জনসংখ্যার দিক দিয়ে ১৪ তম জনবহুল রাজ্য। আর মোট আয়তন প্রায় ১১৩,৯৯৮ বর্গ মাইল। যার জন্য অ্যারিজোনা যুক্তরাষ্ট্রের ৬তম বৃহত্তর রাজ্যে পরিণত হয়েছে। এই রাজ্যের বৃহত্তর শহর ও রাজধানী হচ্ছে ফিনিক্স। ২০১০ সালের তথ্য অনুযায়ী, অ্যারিজোনা রাজ্যের ৭৪.১% মানুষ ইংরেজি ভাষায় কথা বলে। এছাড়াও স্প্যানাশি ভাষায় ১৯.৫%, নাভাজোতে ১.৯% এবং অন্যান্য ভাষায় কথা বলে ৪.৫% মানুষ। 

৬. আর্কানসাস (Arkansas)

আর্কানসাস এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
আর্কানসাস হল আমেরিকার দক্ষিণ মধ্য ভাগে অবস্থিত একটি রাজ্য। যা আমেরিকার স্থলবেষ্ঠিত রাজ্য। আর্কানসাস এর রাজধানীর নাম লিটল রক। আর্কানসাস জনসংখ্যা ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, ৩,০১৩,৭৫৬ জন। আর এটি আয়তন প্রায় ৫৩,১৭৯ বর্গ মাইল। যার ফলে আর্কানসাস জনসংখ্যার ভিত্তিতে ৩৪ তম এবং আয়তন এর ভিত্তিতে ২৯তম। আর্কানসাস রাজধানীর নাম লিটল রক। 

৭. ক্যালিফোর্নিয়া (California)

ক্যালিফোর্নিয়ার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম এর মধ্যে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে এই রাজ্য।  ক্যালিফোর্নিয়ার রাজধানীর নাম স্যাক্রামেন্টো। ক্যালিফোর্নিয়া আমেরিকার রাজ্য গুলোর মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি রাজ্য। ক্যালিফোর্নিয়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমের প্রসান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে অবস্থিত। ২০২৩ সালের তথ্য অনুযায়ী, California তে মোট জনসংখ্যা প্রায় ৩৮,৯৪০,২৩১ জন এবং মোট আয়তন এর পরিমাণ ১৬৩,৬৯৬ বর্গ মাইল। এর বৃহত্তর শহর লস অ্যাঞ্জেলেস। এখানে ইংরেজি ও স্প্যানিশ ভাষায় মানুষ প্রায় মানুষ কথা বলে।

৮. কালোরাডো (Colorado)

কালোরাডোর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
কালোরাডো হল আমেরিকার পশ্চিম উপকূলের একটি রাজ্য। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ১ জুলাই ২০২৩ এ করা একটি পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে, কালোরাডোর জনসংখ্যা প্রায় ৫,৮৭৭,৬১০ জন। যা কালোরাডো কে ২১ তম জনবহুল রাজ্যে পরিণত করেছে। এর আয়তন ১০৪,০৯৪ বর্গ মাইল। যার ফলে কালোরাডো এখন আমেরিকার ৮ম বৃহত্তর রাজ্য। কালোরাডো রাজধানী ও জনবহুল শহর হল ডেনভার। এখানে সবাই ইংরেজিতে কথা বলে থাকে। 

৯. কানেটিকাট (Connecticut)

কানেটিকাট এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
কানেটিকাট হল যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ তম একটি রাজ্য। এর বৃহত্তর শহর হল ব্রিজপোর্ট।  কানেটিকাটর রাজধানীর নাম হার্টফোর্ড। কানেটিকাট এর জনসংখ্যা প্রায় ৩,৬০৫,৯৪৪ জন।‌ যা কানেটিকাট কে ২৯ তম বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর রাজ্য বলা হয়। কানেটিকাট হল যুক্তরাষ্ট্রের ৪র্থ ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা হিসেবে পরিচিত। কানেটিকাট আয়তন প্রায় ৫,৫৪৩ বর্গ মাইল। যা আয়তনের দিক থেকে আমেরিকার ৪৮তম রাজ্য। 

১০. ডেলাওয়্যার (Delaware)

ডেলাওয়্যার এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ডেলাওয়্যার হল আমেরিকার আটলান্টিক মহাসাগরীয় একটি রাজ্য। ডেলাওয়্যার এর রাজধানীর নাম ডোভার। এর বৃহত্তর শহর হল উইলমিংটন। ডেলাওয়্যারের মোট আয়তন প্রায় ২,৪৮৯ বর্গ মাইল। তা আমেরিকার ৪৯ তম রাজ্য। যদি ও এটি একটি ছোট রাজ্য। তবুও এর জনসংখ্যা প্রায় ১,০৩১,৮৯০ জন। যা আমেরিকার ৬তম ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা হিসেবে পরিচিত। এর কোন নিজস্ব সরকারি ভাষা নেই। ডেলাওয়্যার এর রাজধানী হল ডোভার। 

অজানা আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম নিচে দেওয়া হল:

১১. ফ্লোরিডা (Florida)

ফ্লোরিডার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
Florida আমেরিকার দক্ষিণ পূর্ব অঞ্চলের একটি রাজ্য। যা এর অবস্থানের জন্য আমেরিকার একটি জনপ্রিয় রাজ্য হিসেবে পরিচিত। ফ্লোরিডারং মোট জনসংখ্যা প্রায় ২১ মিলিয়নের ও বেশি। যার ফলে আমেরিকার তৃতীয় সবচেয়ে জনবহুল দেশ। এর আয়তন প্রায় ৬৫,৭৫৮ বর্গ মাইল। যা প্রায় বাংলাদেশের সমান একটি রাজ্য। ফ্লোরিডা রাজধানী হল তালাহাসি। এখান কার মূল ভাষা হল ইংরেজি ৬৭.৩% ও স্প্যানিশ ২১.২%। ফ্লোরিডার বৃহত্তর শহর হল জ্যাকসনভিল। 

১২. জর্জিয়া (Georgia)

জর্জিয়ার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
 জর্জিয়া হল আমেরিকার দক্ষিণ পূর্ব অঞ্চলের একটি রাজ্য। ২০২৩ সালে ইউএস সেন্সাস ব্যুরো এর তথ্য অনুসারে জর্জিয়ার মোট জনসংখ্যা আনুমানিক ১১,০২৯,২২৭ জন। জর্জিয়ার রাজধানী হল আটলান্টা। জর্জিয়ার মোট আয়তন প্রায় ৫৯,৫২৫ বর্গ মাইল এবং এর বৃহত্তর শহর হল ফুলটন। এখানের সরকারি ভাষা ইংরেজি এবং এখানকার অধিকাংশ মানুষ ইংরেজিতে কথা বলে।

১৩. হাওয়াই (hawaii)

হাওয়াই এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
হাওয়াই হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি দ্বীপ রাষ্ট্র। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, এর জনসংখ্যা প্রায় ১,৪৫৫,২৭১ জন। হাওয়াই এর আয়তন প্রায় ১০,৯৩১ বর্গ মাইল। হাওয়াই এর রাজধানী হল হনলুলু। এর দাপ্তরিক ভাষা ইংরেজি ও হাওয়াইয়ান। হাওয়াই ১৩৭টি আগ্নেয় দ্বীপ নিয়ে গঠিত। হাওয়াই এর চারিদিকে সমুদ্র রয়েছে। আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম এর মধ্যে এটি একমাত্র দ্বীপ রাজ্য। 

১৪. আইডাহো (Idaho)

আইডাহোর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
আইডাহো হল আমেরিকার পশ্চিম উপ অঞ্চলের একটি রাজ্য। আইডাহো এর রাজধানী হল বোইস। আইডাহোর জনসংখ্যা প্রায় ১,৯৬৪,৭২৬ জন এবং এর আয়তন প্রায় ৮৩,৫৪৬ বর্গ মাইল। যা আমেরিকার ৫০টি রাজ্যের মধ্যে ১৩তম সর্বনিম্ন জনবহুল এবং ৬তম ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে। 

১৫. ইলিনয় (Illinois)

ইলিনয় এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ইলিনয় হল আমেরিকার মধ্য-পশ্চিম অঞ্চলের একটি রাজ্য। ইলিনয় বৃহত্তর শহর হল শিকাগো। এই রাজ্যের রাজধানী হল স্পিংফিল্ড। ইলিনয় আয়তন প্রায় ৫৭,৯১৫ বর্গ মাইল এবং ২০২০ এর পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এর মোট জনসংখ্যা প্রায় ১২,৮১২,৫০৮ জন। এখানে ৮০% মানুষ ইংরেজি ভাষায় কথা বলে। এছাড়াও ১৪.৯% মানুষ স্প্যানিশ ভাষায় কথা বলে। 

১৬. ইন্ডিয়ানা (Indiana)

ইন্ডিয়ানার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ইন্ডিয়ানা হল আমেরিকার মধ্য-পশ্চিম অঞ্চলের একটি রাজ্য। এটি আমেরিকার ১৭ তম জনবহুল রাজ্য। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, ইন্ডিয়ানার মোট জনসংখ্যা প্রায় ৬,৭৮৫,৫২৮ জন। ইন্ডিয়ানার মোট আয়তন প্রায় ৩৬,৪১৮ বর্গ মাইল। ইন্ডিয়ানা রাজ্যটির রাজধানী ও বৃহত্তর শহর হল ইন্ডিয়ানাপলিস। 

১৭. আইওয়া (Iowa)

আইওয়া এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
আইওয়া হল আমেরিকার মধ্য-পশ্চিম অঞ্চলের একটি স্থল বেষ্টিত একটি রাজ্য। আইওয়া এর রাজধানী হল ডেস মইনেস। ২০২০ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী আইওয়া এর মোট জনসংখ্যা প্রায় ৩,১৯০,৩৬৯ জন এবং মোট আয়তনের পরিমাণ ৫৬,২৭৩ বর্গ মাইল। যা আমেরিকার ২৬তম বৃহত্তম রাজ্য হিসেবে পরিচিত। এখানকার সরকারি ভাষা ইংরেজি। 

১৮. ক্যানসাস (Kansas)

ক্যানসাস এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ক্যানসাস হল আমেরিকার মধ্য পশ্চিম অঞ্চলের একটি স্থল বেষ্টিত সুন্দর একটি রাজ্য। ক্যানসাস এর রাজধানী হল টোপেকা। ক্যানসাস বৃহত্তর শহর উইচিটা। পশ্চিমে কলোরো নদী ডোকানসাস এবং একজন মানুষের নাম কানসা এর নামানুসারে রাজ্যটি নাম ক্যানসাস। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, ক্যানসাস এর মোট জনসংখ্যা প্রায় ২,৯৪০,৮৬৫ জন। ক্যানসাস এর মোট আয়তন ৮২,২৭৮ বর্গ মাইল। এখানকার সরকারি ভাষা ইংরেজি। 

১৯. কেন্টাকি (kentucky)

কেন্টাকির সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
কেন্টাকি হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ পূর্ব অঞ্চলের একটি স্থল বেষ্টিত একটি রাজ্য। কেন্টাকি রাজধানী হল ফ্রাঙ্কপোর্ট এবং এর বৃহত্তর শহর লুইসভিল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, কেন্টাকি এর মোট জনসংখ্যা প্রায় ৪,৫০৫,৮৩৬ জন। এটির মোট আয়তন হচ্ছে ৪০,৪০৮ বর্গ মাইল। এখানকার মানুষ ইংরেজি ভাষায় কথা বলে এবং এই রাজ্যের সরকারি ভাষা। 

২০. লুইজিয়ানা (Louisiana) 

লুইজিয়ানার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
লুইজিয়ানা হল আমেরিকার দক্ষিণ ও দক্ষিণ মধ্য অঞ্চলের একটি রাজ্য। লুইজিয়ানা রাজ্যের রাজধানী হল ব্যাটন রুজ। লুইজিয়ানা হল রাজ্যটির বৃহত্তর শহর। ২০২০ সালের আপডেট তথ্য অনুযায়ী, লুইজিয়ানা মোট জনসংখ্যা ৪,৬৫৭,৭৫৭ জন এবং মোট আয়তনের পরিমাণ প্রায় ৫১,৮৪০ বর্গ মাইল। 

২১. মেইন (Maine)

মেইন এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
মেইন হল united states এর নিউ ইংল্যান্ড রাজ্যের পূর্ব দিকে অবস্থিত একটি রাজ্য। মেইন রাজ্যের রাজধানী হল অগাস্টা এবং এর বৃহত্তর শহর হল পোর্টল্যান্ড। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, মেইন এর মোট জনসংখ্যা প্রায় ১,৩৬২,৪৫৯ জন এবং এই রাজ্যের আয়তন প্রায় ৩৫,৩৮৫ বর্গ মাইল। 

২২. মেরিল্যান্ড (Maryland)

মেরিল্যান্ড এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
মেরিল্যান্ড হল আমেরিকার আটলান্টিক মহাসাগরীয় অঞ্চলের একটি রাজ্য। মেরিল্যান্ড এর রাজধানী হল আনাপোলিস এবং বৃহত্তর শহর হল বাল্টিমোর। ২০২০ সালের হিসেবে, মেরিল্যান্ড এর মোট জনসংখ্যা ৬,১৭৭,২২৪ জন। যা আমেরিকাতে জনসংখ্যার দিক দিয়ে ১ম নম্বরে রয়েছে। মোট এলাকার আয়তন প্রায় ১২,৪০৭ বর্গ মাইল। এখানকার সরকারি ভাষা ইংরেজি। 

২৩. ম্যাসাচুসেটস (Massachusetts)

ম্যাসাচুসেটস এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ম্যাসাচুসেটস হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্ব অঞ্চলের নিউ ইংল্যান্ড এর কাছে অবস্থিত একটি রাজ্য। ম্যাসাচুসেটস এর রাজধানী ও বৃহত্তর শহর হল বোস্টন। ২০১৯ সালের হিসাব অনুযায়ী, ম্যাসাচুসেটস 
এর মোট জনসংখ্যা প্রায় ৭০,৩৩,৪৬৯ জন। এটির মোট আয়তন এর পরিমাণ প্রায় ১০,৫৬৫ বর্গ মাইল। এই রাজ্যের দাপ্তরিক ভাষা ইংরেজি। এখানে মানুষ, ইংরেজিতে ৭৭.৭%, স্প্যানিশ ৮.৭%, পর্তুগিজ ২.৮% ও চীনা ২.১% ভাষায় কথা বলে। 

২৪. মিনেসোটা (Minnesota)

মিনেসোটার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
মিনেসোটা হল আমেরিকার উচ্চমধ্য পশ্চিম অঞ্চলের একটি রাজ্য। মিনেসোটা রাজধানীর নাম সেন্ট পল। এর বৃহত্তর শহর হল মিনিয়াপলিস।২০২৩ সালের তথ্য অনুযায়ী, মিনেসোটার জনসংখ্যা ৫,৭৩৭,৯১৫ জন। এই রাজ্যের মোট আয়তন ৮৬,৯৩৫.৮৩ বর্গ মাইল। এর সরকারি কোন ভাষা নেই। তবে এখানকার মানুষ ৮৮.৯% ইংরেজিতে কথা বলে। এছাড়াও স্প্যানিশ, সোমালি ভাষা ও বিদ্যমান। যদি ও এটি খুব সামান্য।

২৫. মিসিসিপি (Mississippi)

মিসিসিপির সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
মিসিসিপি হল আমেরিকার দক্ষিণ পূর্ব অঞ্চলের একটি রাজ্য। মিসিসিপির রাজধানী ও বৃহত্তর শহর হল জ্যাকশন। রাজ্যটির মোট আয়তন প্রায় ৪৮,৪৩০ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, মিসিসিপি এর মোট জনসংখ্যার পরিমাণ প্রায় ২,৯৬৩,৯১৪ জন। এই রাজ্যের সরকারি ভাষা ইংরেজি। 

শেষের ২৫টি আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম নিচে দেওয়া হল: 

২৬. মিজুরি (Missouri)

মিজুরির সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
মিজুরি হল united states এর মধ্য পশ্চিম অঞ্চলের একটি রাজ্য। মিজুরির রাজধানী জেফারসন সিটি এবং এর বৃহত্তর শহর হল কানসাস নগর। মিজুরির মোট আয়তন প্রায় ৬৯,৭১৫ বর্গ মাইল। যা আমেরিকার ২১ তম বৃহত্তর আয়তনের পরিচিত লাভ করিয়েছে। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, মিজুরির জনসংখ্যা ৬,১৬০,২৮১ জন। এখানকার মানুষ ইংরেজিতে ৯৩.৯%, স্প্যানিশ ২.৬%, জার্মান ০.৪% কথা বলে। 

২৭. মন্টানা (montana)

মন্টানার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
মন্টানা হল আমেরিকার পশ্চিমের একটি রাজ্য। এই রাজ্যটি পাহাড়ি এলাকা হিসেবে পরিচিত। যা এই রাজ্যের পশ্চিমে অনেক ছোট ছোট পাহাড় দেখা যায়। মন্টানার রাজধানী হেলেনা। এর বৃহত্তর শহর হল বিলিংস। মন্টানার আয়তন প্রায় ১,৪৭,০৪০ বর্গ মাইল। যা বাংলাদেশের সমান। এর জনসংখ্যা প্রায় ১,১২২,৮৬৭ জন। এখানকার সরকারি ভাষা ইংরেজি। 

২৮. নেব্রাস্কা (Nebraska)

নেব্রাস্কার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
নেব্রাস্কা হল আমেরিকার মধ্য-পশ্চিম অঞ্চলের একটি রাজ্য। যার ভূমি স্থল বেষ্টিত। নেব্রাস্কার রাজধানী লিংকন। এর বৃহত্তর শহর ওমাহা। নেব্রাস্কা মোট আয়তন এর পরিমাণ ৭৭,৩২৭ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, নেব্রাস্কা মোট জনসংখ্যা ১,৯৬১,৫০৪ জন। জনসংখ্যার দিক দিয়ে এই রাজ্য ১৬তম অবস্থানে রয়েছে। এখানকার সরকারি ভাষা ইংরেজি।

২৯. নেভাডা (Nevada)  

নেভাডার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
নেভাডা হল আমেরিকার একেবারে পশ্চিমে অবস্থিত একটি রাজ্য। নেভাডার রাজধানী হল কারসন সিটি এবং এর বৃহত্তর শহর লাস ভেগাস। নেভাডা মোট আয়তন প্রায় ১১০,৫৭০ বর্গ মাইল। এর জনসংখ্যা প্রায় ৩,১০৪,৬১৪ জন। নেভাডার সরকারি ভাষা ইংরেজি। 

৩০. নিউ হ্যাম্পশায়ার (New Hampshire)

নিউ হ্যাম্পশায়ার এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
নিউ হ্যাম্পশায়ার হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর পূর্ব অঞ্চলের একটি রাজ্য। এটি নিউ ইংল্যান্ড রাজ্যের পাশের রাজ্য। নিউ হ্যাম্পশায়ার এর রাজধানী হল কনকর্ড। নিউ হ্যাম্পশায়ার এর বৃহত্তর শহর হল ম্যানচেষ্টার। নিউ হ্যাম্পশায়ার এর আয়তন প্রায় ৯,৩৫০ বর্গ মাইল। ২০২৩ সালের হিসেবে এই রাজ্যের জনসংখ্যা প্রায় ১,৪০২,০৫৪। সরকারি ভাষা ইংরেজি। 

৩১. নিউ জার্সি (New Jersey)

নিউ জার্সির সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
নিউ জার্সি হল আমেরিকার আটলান্টিক মহাসাগরের এবং উত্তর পূর্ব অঞ্চলের মধ্যবর্তী একটি রাজ্য। নিউ জার্সির রাজধানীর নাম ট্রেন্টন এবং এর বৃহত্তর শহর হল নেওয়ার্ক। নিউ জার্সি আমেরিকার সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা এবং জনসংখ্যার দিক থেকে ১১তম অবস্থানে রয়েছে। নিউ জার্সির জনসংখ্যার পরিমাণ প্রায় ৯,২২৮,৯৯৮ জন। এর আয়তন প্রায় ৮,৭২২.৫৮ বর্গ মাইল। এই দেশে একাধিক ভাষার প্রচলন রয়েছে। তবে ৬৯.৪% মানুষ ইংরেজিতে কথা বলে। 

৩২. নিউ মেক্সিকো (New Mexico)

নিউ মেক্সিকোর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
নিউ মেক্সিকো হল united states এর দক্ষিণ পশ্চিম অঞ্চলের একটি স্থল বেষ্টিত রাজ্য। নিউ মেক্সিকোর রাজধানীর নাম সান্তা ফে এবং এর বৃহত্তর শহর আল বুকাকার্ক। নিউ মেক্সিকোর মোট এলাকার পরিমাণ ১২১,৫৯১ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, এর জনসংখ্যা প্রায় ২,১১৭,৫২২ জন। 

৩৩. নর্থ ক্যারোলিনা (North Carolina)

নর্থ ক্যারোলিনার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
নর্থ ক্যারোলিনা হল আমেরিকার উত্তর ক্যারোলিনার একটি রাজ্য। নর্থ ক্যারোলিনার বৃহত্তর শহর শালট। ২০১৩ সালের এক জরিপে দেখা যায় যে, নর্থ ক্যারোলিনার মোট জনসংখ্যা ৯৮,৪৮,০৬০ জন।

৩৪. নর্থ ডাকোটা (North Dakota)

নর্থ ডাকোটার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
নর্থ ডাকোটা হল আমেরিকার মিডওয়েস্টের একটি অঙ্গরাজ্য। নর্থ ডাকোটার রাজধানীর নাম বিসমার্ক এবং এর বৃহত্তর শহর ফার্গো। ২০২২ সালের তথ্য অনুযায়ী, নর্থ ডাকোটারং মোট জনসংখ্যা প্রায় ৭,৭৯,২৬১ জন। এই রাজ্যের আয়তন এর পরিমাণ ৭০,৭০৫ বর্গ মাইল। এখানকার দাপ্তরিক ভাষা ইংরেজি। 

৩৫. ওহাইও (ohio)

ওহাইও এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ওহাইও হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য পশ্চিম অঞ্চলের একটি রাজ্য। ওহিও বুকিয়ে গাছের নামানুসারে বুকেয়ে স্টেট নামে ডাকা হয়েছে। এর রাজধানী হল কলম্বাস। এর জনসংখ্যা প্রায় ২০২১ সালের তথ্য অনুযায়ী, ১১,৭৮০,০১৭ জন। ওহাইও এর আয়তন এর পরিমাণ ৪৪,৮২৫ বর্গ মাইল। এখানে মূখ্য ভাষা ইংরেজি। তবে খুব সামান্য মানুষ স্প্যানিশ ভাষায় কথা বলে। 

৩৬. ওকলাহোমা (Oklahoma)

ওকলাহোমার এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ওকলাহোমা হল আমেরিকার দক্ষিণ মধ্য অঞ্চলের একটি স্থল বেষ্টিত একটি রাজ্য। ওকলাহোমার রাজ্যের রাজধানীর নাম ওকলাহোমার সিটি এবং এর বৃহত্তর শহর ওকলাহোমা। ওকলাহোমার মোট আয়তন পরিমাণ ৬৯,৮৯৮ বর্গ মাইল। ২০২৩ সালের তথ্য অনুযায়ী, এর জনসংখ্যা প্রায় ৪,০৫৩,৮২৪ জন। এর সরকারি ভাষা ইংরেজি, চোক্টো, চেরোকি। 

৩৭. অরেগন (Oregon)

অরেগন এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
অরেগন হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রসান্ত মহাসাগরীয় উত্তর পশ্চিম অঞ্চলের একটি রাজ্য। অরেগন এর রাজধানীর নাম সালেম। এর বৃহত্তর শহর হল পোর্টল্যান্ড। অরেগন এর আয়তন হল ৯৮,৪৮১ বর্গ মাইল। ২০২৩ সালের হিসাব অনুযায়ী, অরেগন এর জনসংখ্যা প্রায় ৪,২৩৩,৩৫৮ জন।

৩৮. পেনসিলভেনিয়া (Pennsylvania)

পেনসিলভেনিয়ার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
পেনসিলভেনিয়া হল united states এর মধ্য আটলান্টিক, অ্যাপালাচিয়ান, উত্তর পূর্ব, এবং গ্ৰেট লেক এই চারটি অঞ্চলের মধ্যে বিস্তৃত একটি রাজ্য। পেনসিলভেনিয়ার রাজধানীর নাম হ্যারিসবার্গ এবং এর বৃহত্তর শহর ফিলাডেলফিয়া। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, পেনসিলভেনিয়ার মোট জনসংখ্যার পরিমাণ ১৩,০০২,৭০০ জন। এর আয়তনের পরিমাণ প্রায় ৪৬,০৫৫ বর্গ মাইল। এখানকার মূল ভাষা ইংরেজি।

৩৯. রোড আইল্যান্ড (Rhode Island)

রোড আইল্যান্ড এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
রোড আইল্যান্ড হল আমেরিকার নিউ ইংল্যান্ড অঞ্চলের একটি রাজ্য। রোড আইল্যান্ড এর রাজধানীর নাম ও বৃহত্তর শহর হল প্রভিডেন্স। রোড আইল্যান্ড এর মোট আয়তনের পরিমাণ ১,৫৪৫ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের আদমশুমারির ফলাফল অনুযায়ী, রোড আইল্যান্ড এর মোট জনসংখ্যা প্রায় ১,০৯৮,১৬৩ জন। এই রাজ্যটি সপ্তম সর্বনিম্ন জনবহুল রাজ্য। 

“আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম” শেষ দশটি নিচে দেওয়া হল 

৪০. সাউথ ক্যারোলিনা (South Carolina)

সাউথ ক্যারোলিনার এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
সাউথ ক্যারোলিনা হল আমেরিকার একটি দক্ষিণ পূর্ব অঞ্চলের একটি রাজ্য এবং একটি উপকূলীয় রাজ্য। সাউথ ক্যারোলিনার রাজধানীর নাম কলম্বিয়া এবং এর বৃহত্তর শহর চার্লসটন। সাউথ ক্যারোলিনার মোট আয়তন এর পরিমাণ ৩২,০২০.৪৯ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, এখানকার জনসংখ্যা প্রায় ৫,১১৮,৪২৫ জন। সাউথ ক্যারোলিনার সরকারি ভাষা ইংরেজি। 

৪১. সাউথ ডাকোটা (South Dakota)

সাউথ ডাকোটার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
সাউথ ডাকোটা হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর মধ্য অঞ্চলের একটি স্থল বেষ্টিত রাজ্য। সাউথ ডাকোটার রাজধানীর নাম হল পিয়ের এবং বৃহত্তর শহর হল সিউক্স ফেলস। সাউথ ডাকোটা মোট এলাকার পরিমাণ ৭৭,১১৬ বর্গ মাইল। ২০২২ সালের তথ্য অনুযায়ী এর জনসংখ্যা প্রায় ৯০৯,৮২৪ জন। 

৪২. টেনেসী (Tennessee) 

টেনেসীর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
টেনেসী হল আমেরিকার একটি দক্ষিণ পূর্ব অঞ্চলের একটি রাজ্য। টেনেসীর রাজধানী ও বৃহত্তর শহর হল ন্যাশভিল। টেনেসীর মোট আয়তন এর পরিমাণ ৪২,১৮১ বর্গ মাইল। ২০২৩ সালের তথ্য অনুযায়ী, এর জনসংখ্যা প্রায় ৭,১২৬,৪৮৯ জন। সরকারি ভাষা ইংরেজি। এছাড়াও কথ্য ভাষা ইংরেজিতে ৯৪.৬%, স্প্যানিশ ৩.৯% এবং অন্যান্য ভাষায় কথা বলে ১.৫% মানুষ। 

৪৩. টেক্সাস (Texas)

টেক্সাস এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
টেক্সাস হল united states এর দক্ষিণ মধ্য অঞ্চলের একটি রাজ্য। যা আমেরিকার সবচেয়ে জনবহুল রাজ্য গুলোর মধ্যে একটি। টেক্সাস এর রাজধানীর নাম অস্টিন এবং টেক্সাস এর বৃহত্তর শহর হল হিউস্টন। টেক্সাস এর মোট আয়তনের পরিমাণ ২৬৮,৫৯৬ বর্গ মাইল এবং ২০২৩ সালের তথ্য অনুযায়ী, টেক্সাস এর মোট জনসংখ্যা ৩০,৫০৩,৩০১ জন। টেক্সাস জনসংখ্যা ও আয়তনের দিক থেকে আমেরিকার ২য় বৃহত্তর মার্কিন রাজ্য। এখানকার মানুষ ইংরেজিতে ৬৪.৯%, স্প্যানিশ ২৮.৮%, অন্যান্য ৬.৩% কথা বলে। টেক্সাস এ কোন সরকারি ভাষা নেই।

৪৪. ভার্মন্ট (Vermont)

ভার্মন্ট এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ভার্মন্ট হল আমেরিকার উত্তর পূর্ব অঞ্চলের একটি রাজ্য। এর পাশে নিউ ইংল্যান্ড রাজ্যের পাশের অবস্থিত একটি রাজ্য। ভার্মন্ট এর রাজধানীর নাম মন্টপেলিয়ার। ভার্মন্ট এর বৃহত্তর শহর হল বালিংটন। ভার্মন্ট এর মোট এলাকার পরিমাণ ৬,৯১৬ বর্গ মাইল। ২০২৩ সালের আপডেট তথ্য অনুযায়ী, এর মোট জনসংখ্যা প্রায় ৬৪৭,৪৬৪ জন। এখানে সরকারি কোন ভাষা নেই। তবে এখানকার মানুষ ইংরেজিতে কথা বলে। এছাড়াও ২% মানুষ ফরাসি ভাষায় কথা বলে। 

৪৫. ভার্জিনিয়া (Virginia)

ভার্জিনিয়ার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ভার্জিনিয়া হল আমেরিকার দক্ষিণ পূর্ব ও মধ্য আটলান্টিক মহাসাগর অঞ্চলের একটি রাজ্য এবং আটলান্টিক উপকূল ও অ্যাপালাচিয়ান পর্বতমালার মধ্যবতী স্থানে অবস্থিত একটি রাজ্য। এই রাজ্যের রাজধানী হল রিচমন্ড। ভার্জিনিয়ার বৃহত্তর শহর ও জনবহুল শহর হল ভার্জিনিয়া বিচ। ভার্জিনিয়ার মোট আয়তন এর পরিমাণ ৪২,৭৭৪.২ বর্গ মাইল। ২০২৩ সালের হিসাবে এই রাজ্যের মোট জনসংখ্যা প্রায় ৮,৭১৫,৬৯৮ জন। এখানে ইংরেজিতে ৮৬%, স্প্যানিশে ৮% এবং অন্যান্য ভাষায় ৮% মানুষ কথা বলে। 

৪৬. ওয়াশিংটন ডিসি (Washington DC)

ওয়াশিংটন ডিসির এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ওয়াশিংটন ডিসি হল আমেরিকার রাজধানী এবং ফেডারেল জেলা। এই রাজ্য কে অনেকে কলম্বিয়া জেলা ও বলে থাকে। যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী সংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক একটি রাজ্য। এই রাজ্যের আয়তন প্রায় ৬৮.৩৫ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, ওয়াশিংটন ডিসির জনসংখ্যার পরিমাণ প্রায় ৬৮৯,৫৪৫ জন। যা আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম এর মধ্যে প্রধান ও দেশটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল। 

৪৭. ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া (West Virginia)

ওয়েস্ট ভার্জিনিয়ার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া হল united states এর মধ্য আটলান্টিক মহাসাগরের দক্ষিণ অঞ্চলে অবস্থিত একটি রাজ্য। ওয়েস্ট ভার্জিনিয়ার রাজধানীর নাম চার্লসটন এবং এর বৃহত্তর শহর হল কানাওহা। ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া এর মোট এলাকার পরিমাণ ২৪,২৩০ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, ওয়েস্ট ভার্জিনিয়ার মোট জনসংখ্যা প্রায় ১,৭৯৩,৭১৬ জন। এর সরকারি ভাষা ইংরেজি।

৪৮. উইসকনসিন (Wisconsin)

উইসকনসিন এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
উইসকনসিন হল আমেরিকার একটি উত্তর অঞ্চলীয় রাজ্য। উইসকনসিন এর রাজধানী হল ম্যাডিসন এবং রাজ্যের বৃহত্তর শহর মিলওয়াকি। উইসকনসিন এর আয়তন প্রায় ৬৫,৪৯৮.৩৭ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী এর জনসংখ্যা প্রায় ৫,৮৯৩,৭১৮ জন। এর সরকারি কোন ভাষা নেই। তবে এখানকার মানুষ ইংরেজিতে ৯১.৩৭%, স্প্যানিশে ৪.৬৪% এবং অন্যান্য ৮.৬৮% কথা বলে।

৪৯. ইউটা (Utah) 

ইউটার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ইউটা হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি পশ্চিম অঞ্চলের পাহাড়ি একটি রাজ্য। ইউটা এর রাজধানী ও বৃহত্তর শহর হল সল্ট লেক শহর। ইউটার মোট আয়তন এর পরিমাণ ৮৪,৮৯৯ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের তথ্য অনুযায়ী, ইউটার মোট জনসংখ্যা প্রায় ৩,২৭১,৬১৬ জন। এর সরকারি ভাষা ইংরেজি।

৫০. ওয়াইয়োমিং‌ (Wyoming)

ওয়াইয়োমিং এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মানচিত্র হাইলাইট করা হয়েছে
ওয়াইয়োমিং হল আমেরিকার একটি পশ্চিম উপকূলের স্থল বেষ্টিত একটি রাজ্য। ওয়াইয়োমিং এর রাজধানী শহর নাম শেয়ান এবং এর বৃহত্তর শহর হল লারামি। ওয়াইয়োমিং এর মোট এলাকার পরিমাণ প্রায় ৯৭,৮১৩ বর্গ মাইল। ২০২০ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী, ওয়াইয়োমিং এর মোট জনসংখ্যা প্রায় ৫৭৬,৮৫১ জন। এর সরকারি ভাষা ইংরেজি।

উপসংহার 

আসা করি, আজকের “আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম” নিয়ে লিখা প্রতিবেদনটি আপনার খুব ভালো লেগেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সকল রাজ্য গুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। এখানে নাম জানা ও অজানা রাজ্য গুলোর নাম দেওয়া হয়েছে এবং রাজ্য গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে। আজকের এই প্রতিবেদনটিতে আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম কে তুলে ধরা হয়েছে। 

শেষ কথা: আপনার সুস্বাস্থ্য কামনা করছি। আসা করছি আমেরিকার রাজ্য গুলোর নাম আপনি জানতে পেরেছেন। আমাদের ওয়েবসাইটে প্রতিদিন তথ্যবহুল প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়, তাই আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করুন। কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করুন। আসসালামুয়ালাইকুম, ধন্যবাদ।

Share this post with everyone

See previous post See next post
No one has commented on this post yet
Click here to comment

of this websitePrivacy Policy Accept and comment. Every comment is reviewed.

comment url